খুলনা-৫ ও ৬ আসনে জামায়াত নয় বিএনপি’র প্রার্থী দাবি তৃণমূলের

0
39

খুলনা-৫ ও খুলনা-৬ আসনে জামায়াতের প্রার্থী নয়, বিএনপি’র প্রার্থীকেই দলীয় মনোনয়ন দেয়ার দাবি জানিয়েছে সংশ্লিষ্ট নির্বাচনী এলাকার তৃণমূল নেতা-কর্মীরা। গতকাল রবিবার দুপুরে নগরীর কেডি ঘোষ রোডে দলীয় কার্যালয়ে ডুমুুরিয়া উপজেলা এবং পরে একই স্থানে কয়রা উপজেলা বিএনপি’র পৃথক দু’টি সভা থেকে এই দাবি করা হয়। কেন্দ্র থেকে দাবি মানা না হলে বিএনপি’র তৃণমূলের কর্মীরা কঠোর কর্মসূচি, এমনকি ধানের শীষ প্রতীক নেয়া বহিরাগতদেরকে এলাকায় অবাঞ্ছিত ঘোষণা করবেন বলে হুঁশিয়ারি দেন তারা।
এদিকে গতকাল গণমাধ্যমে জেলা বিএনপি’র পাঠানো প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, খুলনা-৬ আসন থেকে বিএনপি’র মনোনয়নে ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী হিসেবে দলের জেলা সভাপতি এড. এস এম শফিকুল আলম মনাকে দাবি করেছেন কয়রা-পাইকগাছার নেতৃবৃন্দ। তাদের দাবি, এখানে সাংগঠনিকভাবে বিএনপি শক্ত ভিত্তির ওপর দাঁড়িয়ে আছে। উপজেলা পরিষদ, ইউনিয়ন পরিষদসহ স্থানীয় সরকারের সকল নির্বাচনের ফলাফলে বিএনপি’র প্রার্থীরা এগিয়ে রয়েছে।
একই সাথে খুলনা-৫ আসনেও জামায়াত নয়, বিএনপি’র প্রার্থী দাবি করেছেন দলটির তৃণমূলের নেতা-কর্মীরা। তাদের অভিমত, বিশেষ রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে কৌশলের অবলম্বন নিয়ে একবারমাত্র এই আসনে জামায়াত প্রার্থী নির্বাচিত হলেও তারা সম্পূর্ণভাবে নির্ভর করেছিলেন বিএনপি’র সাংগঠনিক ভিত্তির ওপর। চার দলীয় জোট ক্ষমতায় থাকলেও বিএনপি’র ২৩ নেতা-কর্মী খুন, দুই শতাধিক আহত ও পঙ্গু, আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। পক্ষান্তরে ক্ষমতায় থাকার সুবাদে নানা ভাবে লাভবান হয়েছে জামায়াত। যে কারণে এবারের ভোটে তারা ধানের শীষ প্রতীক জামায়াতের হাতে তুলে দিতে নারাজ। তাদের দাবি দলের টিকিট পাওয়া এই আসনের সাবেক এমপি ডাঃ গাজী আব্দুল হক কিংবা জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ড. মামুন রহমানকে বিএনপি’র প্রার্থী করতে হবে।
ডুমুরিয়া উপজেলা বিএনপি’র সভাপতি খান আলী মুনসুরের সভাপতিত্বে ও ওহিদুজ্জামান রানার পরিচালনায় বিশেষ সভায় বক্তৃতা করেন গাজী তফসির আহমেদ, মনিরুল হাসান বাপ্পী, মোল্লা মোশারফ হোসেন মফিজ, মুর্শিদুর রহমান লিটন, শামীম কবির, তৈয়েবুর রহমান, আব্দুল মান্নান মিস্ত্রি, শেখ হাফিজুর রহমান, আবুল বাশার, জহুরুল হক, হারুনর রশিদ, ইসমাইল হোসেন, নাদিমুজ্জামান জনি, সরোয়ার হোসেন, ওয়াহিদুজ্জামান নান্না, কবির হোসেন, জহুর আকুঞ্জী, ফজলুল করিম সেলিম, মোল্লা আইযুব হোসেন, শফিকুর রহমান, এম এম জাফর, হালিম শেখ, মোল্লা মশিউর রহমান, শফিক আহমেদ মেজবা, নজরুল মোল্লা, আল শাকিল, আহাদ আলী শেখ।
সভায় ইঞ্জিনিয়ার মনির হাসান টিটোর ওপর সন্ত্রাসী হামলার নিন্দা এবং হামলার সাথে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানানো হয়।
এদিকে কয়রা উপজেলা বিএনপি’র সভাপতি এড. মোমরেজুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও নুরুল আমিন বাবুলের পরিচালনায় নির্বাহী সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন এড. এস এম শফিকুল আলম মনা। বক্তৃতা করেন মনিরুজ্জামান মন্টু, কামরুজ্জামান টুকু, এড. কে এম শহিদুল আলম, মুর্শিদুর রহমান লিটন, আব্দুল মান্নান মিস্ত্রি, মশিউর রহমান যাদু, জাফরী নেওয়াজ চন্দন, মনিরুজ্জামান বেল্টু, সরদার মতিয়ার রহমান, জসিমউদ্দিন লাবু, জাবির আলী, ডি এম নুরুল ইসলাম, আব্দুল মান্নান মিস্ত্রি, মঞ্জুরুল আলম নান্নু, মনিরুজ্জামান মনি, রফিকুল ইসলাম মিস্ত্রি, জি এম রফিকুল ইসলাম, আবুল কালাম আজাদ, হাফিজুর রহমান, হাবিবুর রহমান, জি এম সিরাজুল ইসলাম, লিটন মোল্লা, রেজাউল ইসলাম রেজা, আব্দুর রহমান, ফয়জুল করিম মোল্লা প্রমুখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here